অলক কাপালির ব্যাটিং ঝড়ে ভেস্তে গেলো ফজলে রাব্বি-মিজানুরের সেঞ্চুরি

ডিপিএলের ৪১তম ম্যাচে মিজানুর-ফজরে রাব্বির সেঞ্চুরি আর ইয়াসির আলীর ঝড়ো অর্ধশতকে প্রাইম ব্যাংকের দেওয়া ৩৩১ পাহাড় সম টার্গেটকে টপকে কাপালি-অভিমুন্যের ব্যাটে দুর্দান্ত জয় তুল নিয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।


বাদার্সের দেওয়া ৩৩১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরতেই ওপেনার সালমানকে হারায় প্রাইম ব্যাংক। তবে আরেক ওপেনার বিজয় সে চাপ সামাল দিয়ে রান করকে থাকেন দ্রুতগতিতে। ৪৭ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে ফিরে যান অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়। তাকে দারুনভাবে সঙ্গ দেওয়া অভিমুন্য সারওয়ানও তুলে নেন অর্ধশতক।
পরবর্তী ব্যাটিংয়ে নেমে আরো একটি অর্ধশতক করেন আল আমিন। ৪৭ বলে ৫২ রান করে তার বিদায়ের পর ৯০ রান করে একটু পরেই ফিরে যান অভিমুন্যও। তবে তাতেও দমে যায়নি প্রাইম ব্যাংক। ব্যাটিংয়ে নেমে দলের দায়িত্ব নেন কাপালি। ৬৫ বলে ৩ ছক্কা এবং ৬ চারে ৮২ রানে অপরাজিত থেকে ৭ বল আগেই দলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি। ব্রাদার্সের সাজেদুল সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন।
এর আগে মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের ইনিংসের শুরু করতে আসেন ব্রাদার্সের দুই ব্যাটসম্যান মিজানুর রহমান ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। তবে উদ্বোধনী জুটিতে একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি তারা, দলীয় ১০ রানের মাথায় ৭ রানে থাকা জুনায়েদ রান আউটে কাটা পরলে ভাঙে এই পার্টনারশিপ।
এরপর তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামেন ফজলে রাব্বি, ইনিংস মেরামতের কাজ শুরু করেন মিজানুরকে নিয়ে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে মিজানুর ও ফজলে মাহমুদ মিলে শাসন করতে থাকেন প্রাইম ব্যাংকের বোলারদের। এরই এক ফাঁকে নিজের শতক তুলে নেন মিজানুর, লিস্ট এ ক্যারিয়ারে যেইটা তার চতুর্থ সেঞ্চুরি। তবে তিন অঙ্কের কোটা ছোঁয়ার পর নিজের ইনিংসটাকে আর বড় করতে পারেননি তিনি, ফিরেছেন ১০০ রানেই। ১০৯ বলে খেলা মিজানুর তার ইনিংসটি সাজিয়েছেন ৮টা চার ও ৫টা ছয়ের সাহায্যে।
১৯৩ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ছেদ পড়ার পর নতুন ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী রাব্বিরকে সাথে নিয়ে শতক হাঁকানোর কাজটা সেরে রাখেন ফজলে রাব্বিও। তবে মিজানুরের মত ভুল পথে হাঁটেননি তিনি, টেনে নিয়ে গেছেন নিজের ইনিংটাকে। এর আগে লিস্ট এ ক্রিকেটে ৪টা সেঞ্চুরির দেখা পাওয়া বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান পরে খেলেছেন নিজের ক্যারিয়ার সেরা ১৪৯ রানের ইনিংস। নিজের অপরাজিত এই ইনিংসটি খেলতে ফজলে ১৩টা চারের সাথে ছক্কা হাঁকিয়েছেন ৫টি।
দুই শতকের ভিড়ে কম যাননি বিপিএলে বাজিমাত করা চিটাগং ভাইকিংসের ব্যাটসম্যান ইয়াসির রাব্বিও। ব্যাট হাতে ঝড়ো তুলে খেলেছেন ৩৭ বলে ৬১ রানের ইনিংস। আর এরই কল্যাণে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ৩৩০ রানের বিশাল পুঁজি পায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন।

No comments

Powered by Blogger.