রাশিদের হাতে আছে ‘পাঁচ’ রকমের অস্ত্র!

রাশিদের হাতে আছে ‘পাঁচ’ রকমের অস্ত্র!

আফগানিস্তানের লেগ স্পিনার রাশিদ খান আন্তর্জাতিক আঙ্গিনায় পা দেওয়ার পর থেকেই দেখিয়ে চলেছেন চমক। বর্তমানে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ১ নম্বর বোলার, ওয়ানডেতে তিন নম্বর। দুর্দান্ত বোলিং এর পাশাপাশি ব্যাট হাতেও দেখান ক্যামিও। আইসিসির সর্বশেষ সংশোধিত ওয়ানডে অলরাউন্ডার তালিকায় শীর্ষে থাকাই জানিয়ে দিচ্ছে রাশিদ ব্যাট হাতেও দলে কতটা ভূমিকা রাখেন। আইপিএলেও সে ধারা বজায় রেখে জানিয়েছেন তার সফলতার রহস্য, বোলিং ভান্ডারে সংরক্ষণ করছেন বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র।

আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে খেলছেন গত তিন মৌসুম। যেখানে ৩৪ ম্যাচে তুলে নিয়েছেন ৪০ উইকেট। এবারের আসরে উইকেট সংখ্যায় এখনো উপরের দিকে না থাকলেও কিপটে ইকোনোমিতে দলকে দারুণভাবে সাহায্য করছেন প্রতি ম্যাচেই। এরমধ্যে গত শুক্রবার রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে বড় লক্ষ্য তাড়া করে জেতা ম্যাচে অবদান রেখেছেন ব্যাটে-বলে, হয়েছেন ম্যাচ সেরা।
শেষদিকে ৮ বলে তার ১৫ রানের ইনিংসেই ১৯৮ রানের লক্ষ্য ৬ বল হাতে রেখেই টপকায় সানরাইর্জ। বল হাতে ৪ ওভারে ২৪ রান খরচায় নিয়েছেন এক উইকেট। সেই ম্যাচ শেষে ব্যাট হাতে সফলতার প্রসঙ্গে রাশিদ জানান তাকে সাহস জুগিয়েছে দলের কোচ ও মেন্টররা। এ প্রসঙ্গে রাশিদ বলেন, ‘আমি ব্যাটিংয়ে নজর দিয়েছি। দলের প্রয়োজনে আমাকে ব্যাট করতে হবে। আমার কোচ টম মুডি, ভিভিএস লক্ষ্মণ, মুরালিধরন আমাকে সাহস জুগিয়েছেন যে আমি চাইলে যেকোনো জায়গায় বল মারতে পারি।’
নিজের মূল পরিচয় বিশেষজ্ঞ বোলার। ৫৭ ওয়ানডেতে ১২৩টি উইকেট, ৩৮ টি-টোয়েন্টিতে ৭৫! ওয়ানডেতে নিয়েছেন ম্যাচের হিসেবে দ্রুততম ১০০ উইকেট। এমন অসাধারন বোলার হওয়ার পেছনে রয়েছে রাশিদের নিজস্ব বোলিং অস্ত্র, এমনটাই জানালেন আফগানিস্তানের এই তারকা লেগস্পিনার, ‘আমি পাঁচ রকমের লেগ স্পিন করতে পারি পাঁচটি ভিন্ন অ্যাকশনে। পিচের উপর নিয়ন্ত্রণ রেখে বৈচিত্র্যের সাথে ভালো জায়গায় বল ফেলতে পারি।’

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর রাশিদ খান আফগানিস্তানের হয়ে খেলেছেন ৫৭  ওয়ানডে, ৩৮ টি-টোয়েন্টি ও ২ টেস্ট। ওয়ানডেতে ১২৩ উইকেটের পাশাপাশি ২৩.৬৯ গড়ে ৪ ফিফটিতে করেছেন ৭২২ রান। টি-টোয়েন্টিতে নিয়েছেন ৭৫ উইকেট ও মাত্রই সাদা পোশাকের ক্রিকেটে পা দেওয়া আফগানদের হয়ে দুই টেস্টেই খেলে নিয়েছেন ৯ উইকেট।

No comments

Powered by Blogger.