রুদ্রাক্ষ রায়হানের পদাবলি


রুদ্রাক্ষ রায়হানের পদাবলি


ক্ষুধা


মিছরির দানাগুলো-
জমিয়ে রেখেছে যে জার, সে জানে কতটা-
কৈফিয়ত শেষে পিঁপড়ের ফিরে যেতে হয়

চৌকাঠে পরে আছে অদ্ভুত বিরহীর চোখ
কষ্টের মুখ ছুঁয়ে, কাঙ্খার রাত ফিরে আসে
বয়ামের মুখ খুলে মিছরির দানা খোঁজে কে?

ঘুমিয়ে যেতে যেতে জেগেছে যে রাত
তার কাছে ক্ষমা চাই আমি, মাঝরাতে-
মিছরির দানা দিও আদর বে-নামি।



পেঁচা


আলেয়া জানে কতটুকু জ্বলে পরে-
নিভে যেতে হয়, পাখিদের মৃত্যুর দিনে

ভুল হয় পুঁথি পাঠ, শ্লোক
পিঙ্গল স্বপ্নেরা চোখে এসে ভীড় করে ঢের
অদ্ভুত রাত্রির গাঁয়ে, মৃতমুখ পথ ভুল করে

তার দুই চোখ জ্বলজ্বলে
ক্রমশ হিম স্রোত বয়ে যায় কন্ঠের নীচে
হিজলের বন কেঁদে ওঠে, মৃত্যুর-
মুখে কেউ সুর তুলে দিয়েছে গোপনে




ছায়া


পুকুরের ঘাটে টোপা পোনা পিচ্ছিল-
শ্যাওলার জলে
পা দিও ধীরে, সাবধানে

শামুকের চলাচল শুনে-
চুপচাপ থির হয়, কালো রুই মাছ
পুকুরের জলে মুখ রেখো সাবধানে

কালো চোখ কালো চুল রাতে
চুপচাপ আসমানে উঠে যায় চাঁদ
নরম আলোয় চুপ থেকো সাবধানে




কুমিরা


ঘুটঘুটে অন্ধকারে হঠাৎ-
জোয়ারের জল জেগে ওঠে
ঘাটে ফেরে ঢেউক্লান্ত নৌকার ঝাঁক

আধভাঙা জাহাজেরা ঘুম যায়, পৃথিবী
ঘুমিয়ে গেলে, নেশাতুর ঝাউবন হাসে
কালো রং নৌকারা ইলিশের ঝাঁক নিয়ে আসে

গুন গুন মাছ গোনে, ঠান্ডায়-
চোলাই মদের সুখ, ড্যাবড্যাবে বউ সুখ পাশে
ইলিশের মাঝি রাতে বিছানার রঙ ভালোবাসে


এনথ্রোপলজি


অশ্বত্থের ডালে লেখা আছে-
নাম আর বাকী পরিচয়
পুরাতন নৃতত্ত্ববিদ, ভূত হয়ে মগডালে ঘুমায়

টোটেমের পাঠ নেয়া মাছ-
ফড়িংয়ের আত্মীয় নয়
সুনীল বাতাস তবু আগুনের অধিকার চায়

তমোঘ্ন সন্ধ্যারা জানে, ধুপ কাঠি -
জ্বলে ওঠে তুমুল ধোঁয়ায়
রাত্তিরে মগডালের ভূত আর ঘুঘু যে।

No comments

Powered by Blogger.