মোস্তফা হায়দারের পদাবলি


মোস্তফা হায়দারের পদাবলি


প্রতিশ্রুতির আয়নায় 


মধ্যরাতের শীতে বুক কাঁপছে থরথরে
কবিতারা উষ্ণতা খোঁজে শব্দের আপন স্বরে
কাঁথার নকশী করা চিত্রের মাঝে দেখি বাঁচার স্বপ্ন
আমলহীন আলেমদের চিৎকারে ঈমান আজ ভগ্ন!

ভন্ড আর প্রতারক রাজাবাদশারা বেহায়ার কাতারে
ধর্মের নামে ব্যবসায়ীগুলো একেকটা বড্ড ভাতারে
জগতের বিশ্বাসীরা বিবেকের কাছে বস্তাবন্দী!
প্রতিশ্রুতির আয়নায় রাখা থাকে নিজেদের সন্ধি!

বিষয় বৈভবে ধর্মের কাছে থেকে হককে করে আড়াল
আখের ঘুছাতে বাতিলের কাছে গিয়ে খায় শুধু ধাতাল!




কাননকলির কোল ঘেঁষে 


সারাদিন বিকেলের আশায় ধর্ষণ করেছ 
সন্ধ্যার আলো আঁধারিতে চোখ হয়ে গেছে অন্ধ!
রাতের পূর্বেই ধর্ষণের ভেতরাত্মা কেঁদে ব্যাকুল
শিশ্নের অংকুরিত আবেগের কাছে কেঁদে চলেছে বিশ্ব
ভোগের লেলিহান তাণ্ডবে আজ সব নিঃস্ব!

ধর্ষণের
দর্শন চিত্রে বেহায়ারা হেঁসে কুটিকুটি
অঞ্জলিতে ভরে যায় বেহায়ার কটিদেশ
দর্শক কররে তোরা জয়োধ্বনি কর!

বাতাসে উষ্ণতার গন্ধরা সোনালু লতার মতো হাতবাড়ায়
বয়ে বেড়ায় রং বেরঙ ইচ্ছে ফানুস
গুঞ্জরিত নীলের জলে বুদ বুদ ঢেউগুলো
ছড়ায়ে যায় কাননকলির কোল ঘেঁষে



চিন্তা করে মফিজ 


দরবারের কিছু অশ্ব ছিল ভবিষ্যতের গোলাবারুদ
দেখে দেখে ইতিহাসের কাছে স্বপ্ন রোপন করেছে
জীবনের উচ্ছ্বাসি পাতায় এঁকেছিল বাঁচতে জানা একটি স্বপ্নের করিডোর
আজ বিবেকের পঁচনতলায় তারা একেকটা ষাঁড়!

মুখে খই ফোটা সে ডিম্বগুলো
ক্ষমতার উষ্ণতার কাছে বেহায়ার স্বাদ নেয়!
ভেঙে দেয় প্রজন্মের ভবিষ্যতের বিশ্বাস!

বিষাক্ত সেই অশ্বগুলোর পতন দেখতে 
মফিজ মিয়ারা ধর্ম অর্ধমের কাছে নতজানু
মতবাদের পাছায় কোষাঙ্গুল দিয়ে
লিল্লাহবোডিং খোলে দেখিয়ে যাচ্ছে খেইল!

লাল সবুজের মাটিতে বসে ডিম্বরা ভারত-পাকিস্তান জিকির তোলে
নিজের পাছার নিচের ঘ্রাণ শুঁকে না কিন্তু!
বিলবোর্ডের নায়িকাগোরে দেখে দেখে 
মধ্যরাত কাটায় প্যান্টের জিপার খোলা রেখে
কেউ কেউ নেড় টেনে ভাঁজ ভাঙ্গে!
মফিজ মিয়ারা আপন আলোর কাছে 
এক বাতিওয়ালার ইচ্ছে পুরুষ হয়ে থিতু হয়

নোনাজলের গায় বসে স্বপ্নের চিত্র আঁকা যায়
মানুষের মন আঁকা যায় না!
ভোগের রংধারণ করা যায়
উগলে দেয়া যায় না অশ্বডিম্বের ইচ্ছেটুকু!


No comments

Powered by Blogger.