তামীম চৌধুরীর একগুচ্ছ কবিতা


তামীম চৌধুরীর একগুচ্ছ কবিতা


তামীম চৌধুরীর একগুচ্ছ কবিতা - আগুয়ান - Tamim chowdhury - Agooan Webmag



কালো বিড়াল   


বিষমাখা গম চাল ডাল খুদ
কতো লোক কতো কী রেখে গিয়েছিলো
গর্তের কাছে

ভুলেও ছুঁয়ে দেখিনি
কৃষকের কতো ফাঁদ পেরিয়ে গেছি
কখনো কোনো ভুল হয়নি
এবার বুঝি প্রথমবার বোকামি হলো
তুমি এসে ভালোবাসা নিয়ে ডাক দিলে
চু চু শব্দ করে নিরাপদ গর্ত থেকে
আনন্দে বেরিয়ে এলাম
ধানক্ষেত আলপথ বাঁশঝাড় ঘরবাড়ি
অনেক দূর পথ চু চু শব্দ করে
এক সাথে হেঁটে এসে দেখি

যে আমাকে
ভালোবাসা নিয়ে ডাক দিয়েছিলো
সে একটি কালো বিড়াল


ঝরাপাতার রোদন


হলুদ হবার আগেই
আমার সবুজ জীবন
চৈত্রের একলা বাতাসে
            একলা ঘুরে ঘুরে
  মাটির খুব নিকটে এসেছে

তাতে গাছটার এক তিল কষ্ট হলো না
ছিটেফোঁটা অনুতাপ হলো না
    আমাকে ঝরিয়ে দিয়ে
       মগডালের খোঁপা খুলে
উত্তুরে হাওয়ায় ঠাঁই আগের মতো দাঁড়িয়ে আছে

পত্রের সমারোহে
একটি পত্র ঝরে গেলে
দুঃখ করার যদিও কিছু নেই
তোমার পাদদেশে পড়ে থেকে, তবু বলি হে প্রিয়ো-

জীবন্ত গাছের কাঠে যেহেতু ঘুণ ধরে না
একদিন শিকড় মরে গেলে আমাকে বুঝবে...
             


যাতনা

ঝগড়াঝাটির আগুনে পুড়ু বিহঙ্গসম্প্রদায়
আয়না ধরে কাড়াকাড়ি করুক
শালিক দোয়েল ময়না টিয়ে;- কার আগে
কে দেখবে মুখ, তা নিয়ে গাছে গাছে
চেঁচামিচি হোক;- স্বরূপ দর্শনে ব্যথিত হবো
আমি উটপাখি তাই দর্পণে তাকাবো না কখনো


হেঁটে পার হও জলভরা নদী


তোমাকে চাইলাম
তুমি বললে, এই পারে আসো

আমি নৌকো নিলাম, বললে "হবে না"
আমি সাঁতার দিলাম, বললে "নিষেধ"

হতভম্বের মতো শুধালাম তোমাকে "তবে?"

বললে, চেয়েছো যেহেতু পাবে
পেতে হলে জলের ওপরে হেঁটে
এই নদী পার হও

আমি জলে নামি, হাঁটি
হাঁটতে গিয়ে ডুবে যাই
ডুবতে ডুবতে তোমাকে
পাবার আকাঙ্খা
আরো সুতীব্র হয়

অতল জলে একদিন দিব্যি হাঁটবো
ডুববো না, পায়ের পাতাটিও ভিজবে না

এইযে আমার কণ্ঠ ছুঁয়ে বলছি
এইযে আমার চোখ ছুঁয়ে বলছি
তোমাকে দেখাবো- প্রেমে পড়লে
কী করে পায়ের পাতা না-ভিজিয়ে
জলভরা অতল নদী হেঁটে হেঁটে পার হওয়া যায়


আড়ালের গল্প


তোমার মন বুনোবৃক্ষের বীজ ছিলো না
ওটা অঙ্কুরিত করতে আমার খুব কষ্ট হয়েছে

কী করে তোমাকে পেয়েছি
তা বলতে হলে, বলতে হবে
ছোট একটি পাতার ওপরে বসে
ঢেউসমেত সীমাহীন জল পাড়ি দিয়ে

একটি পিঁপড়ে
কী করে ওপাড়ের সবুজ ঘাসের ডগায় উঠেছে


এক পাঅলা


এক পা নিয়ে জন্মেছি বলে
আমাকে সুখের কাছে যেতে হলে
লাফিয়ে লাফিয়ে যেতে হয়
যাবার সময় ডানপাশে মাটির ওপর
এক পায়ে লাফানো ছায়াটা দেখে
খুব খারাপ লাগে!

আমি ছাড়া আর সবাই
ঘোড়দৌড়ে
সুখের কাছে পৌঁছাতে পারে

শুধু আমিই হস্তরেখায়
বিপন্ন কুরুক্ষেত্র নিয়ে জন্মেছি
মুঠো খুললেই দেখি
ওখানে আমার জন্যে
বাঁকানো ধনুকের তীর প্রতীক্ষারত

আমার ছায়াটাকে
এক পায়ে লাফাতে দেখি
খুব যন্ত্রণা হয়
যেন চুপচাপ গাছের খোঁড়লে
নীড় বেঁধে ঘুমিয়েছিলাম আমি একটি কালো পাখি
অল্প আগে যার উরুতে দংশন করেছে বিষধর সাপ!

No comments

Powered by Blogger.