জারিফ এ আলমের কবিতাগুচ্ছ

জারিফ আলমের কবিতাগুচ্ছ






আগুয়ান - কবিতা- কবিতাগুচ্ছ - জারিফ এ আলম - ওয়েবম্যাগ - সাহিত্য - কবি -Agooan - jarif a alam - kobi - poet - kobita- webmag - bangla online magazine
জারিফ এ আলমের কবিতাগুচ্ছ






ফায়ারিং স্কোয়াড


আটকে আছি কেবল সীমার ব্যারিকেডে
ঝরা-মৃত্যুর সাথে স্বাভাবিক সংসার এখন
রাত নামলে পোড়োবাড়ির ভয়ার্ত গলির মতো
অচেনা শব্দের ভয় জাগানো শিরশিরে অনুভব;
এইসবের সঙ্গে বোঝাপড়া হয় আজকাল

বাক্যের চতুরতা নিয়ে জিতে যায় রাজনীতি
বিভেদের কালাম কানে এলে পায়তারা চলে
স্বপ্নকে হাতিয়ে নেয়ার

সকাল বলতে আজ বোঝায় প্রতীকি এই সকল
রকম নিরুত্তাপ নিরস্ত্র সকাল বহুদিন অামাদের
বন্দি রেখেছে কণ্ঠে আওয়াজ নেই বলে
মানুষ ভুলে গেছে মোহমুক্তির আজান
বেভুল হয়ে ঘুরপাক খায় মানুষেরা
নিজেদের আত্মবিনাশী ফায়ারিং স্কোয়াডে



প্রস্তুতি


শীতের পোশাকে অস্তিত্ব ঢেকে রেখে
খুঁজে ফিরছি শরীরের ওম
বেঁচে থাকার সংজ্ঞা না জেনে
ভরাডুবি হয়ে গেছে উত্থান-পতনে

যার ঘর নেই তোমাকেই ভেবেছে তারা
প্রেমের সহায়; ব্যাকুল আহ্বানে
কতোকাল মূর্ছিত সময়ের কাছে
গাণিতিক হিশেব নিয়ে
ছুটে গেছে সবাই শাস্ত্র বিশ্লেষণে;
আমরা মানুষ প্রেম চেয়েছি
গাছ যেমন বেঁচে রয়
সালোকসংশ্লেষণে



বিমানবালা


দীর্ঘ অন্তরীনের পর শয্যা ছেড়ে উঠে আসে
                   স্বপ্ন
                     আকাঙ্ক্ষার
                                বীজ
আবর্তিত পৃথিবীর মতো ঘুরপাক খায়,
অসহিষ্ণু ভালোবাসা আর ঘৃণায়
রঙ ছড়াতে ছড়াতে আশ্রয়ে পেলে, আর পেলে
বেঁচে থাকার সাহসটুকু এইসব বীজমন্ত্র নিয়ে
জীবনের উৎসবে শান্তি ফিরে আসুক
কার বুকে রেখেছো মুখ!

কে খুলে দিলো দরোজা! কে খুলে দেয় বক্ষবন্ধনী!
তোমার বুকে মাতাল জ্যোৎস্না হেসে ওঠে;
জোগায় আবার উড়বার মতো দুর্বিনীত সাহস
বেহায়া সময়ের দরোজায় কড়াঘাত
এখন তোমার বুকে মুখ ঘষে ওড়াও তাকে ওড়াও
দুঃখে ভরা তাপিত মন, পোড়াও তুমি পোড়াও!



প্রায়শ্চিত্ত


                               ভীষণ মনঃকষ্টে আছি
            বুকের মাঝে তীব্র ব্যথা উথলে ওঠে
                        সাংকেতিক এই দুঃখ নিয়ে
     আকাশ ভেঙে দুঃখঝরা গোলাপ ফোটে

                               অশ্রুহারা দুচোখ জুড়ে
          আছে কেবল শূন্যতা আর দুঃখবোধ
                             কিসের ভুলে এমন করে
 আজকে তুমি কোন হিশেবের নিচ্ছো শোধ

                                  দুঃখটাকে স্বপ্ন ভেবে
        ভুল করেছি নেইতো মনে সেই যে কবে
                        আজকে তারই মাশুল দিতে
         আর কতোকাল বিষণ্নতাই স্বজন হবে

                         ঘুম আসে না তাই কি তবে
         ভাবতে গেলে হতাশ হয়ে ফিরছি ঘরে
                              স্বপ্ন দেখার সকল কিছু
          ভাঙতে মনে সরব হয়ে আছড়ে পড়ে

                      হয়তো কোনো ব্যাধির মতো
   আজকে হঠাৎ মনটা ভীষণ উঠছে কেঁপে
                           দুঃখ কেবল যাচ্ছে বেড়ে
                        এই মনেরই আকাশ ব্যেপে




মরণোত্তর কবিতা


জানলার পাশে জ্যোৎস্নায় ভেসে যাচ্ছে চরাচর
রোমাঞ্চকর বয়সঃসন্ধি ফিরে ফিরে আসছে
ভাঙা বেড়ার খিড়কি দিয়ে পৌঁছে গেছে
মোহ ছড়ানো ছেলেবেলা

গভীর চুম্বনে যখন ভারী হয়ে আসে শ্বাস
তখনও তোমার বুকে ঠোঁট গুঁজে খুঁজি
পরম কাঙ্ক্ষিত দেহের উষ্ণতা



গণতন্ত্র সিরিজ


ইঁদুরটি বেড়ালকে বাঘের বাচ্চা বলার পর,
বেড়াল আনন্দিত হলো হরিণেরা অবশ্য
কোনো আপত্তি তুললো না
কারণ, বেড়াল তো আর
তাদের কোনো ক্ষতি করছে না

বেড়াল তখন থেকে নিজেকে
গণতান্ত্রিক বাঘ মনে করতে লাগলো

.
আর কোনো সুখ স্পর্শ করেনি তাদের
সঙ্গম শেষে তারা চেয়েছিলো
আগামীর উত্তরাধিকার
শৃঙ্খলিত কাশ্মীমের মতো
এই যে এতো ক্ষত
উৎসব রক্তজবার

No comments

Powered by Blogger.