আইরিন সুলতানা লিমার কবিতাগুচ্ছ


আইরিন সুলতানা লিমার কবিতাগুচ্ছ







আগুয়ান- কবিতা- কবিতাগুচ্ছ- আইরিন সুলতানা লিমা- ওয়েবম্যাগ- অনলাইন ম্যাগাজিন- বাংলা ম্যাগাজিন- Agooan- Webmag- Bangla Online magazine- kobita - podaboli -
আইরিন সুলতানা লিমার কবিতাগুচ্ছ - ‍ আগুয়ান



. তুমি বেঁচে থাক কবিতায়


তোমার অব্যক্ত কথামালা বেঁচে থাকুক
আমার কবিতায়,
আমার জীবনের প্রতিটি পরতে তুমি জেগে থাক

আমার প্রতিটি কথাই তো তোমার জীবনের প্রতিটি দিক বর্ণনা করেছিল....

কী দণ্ড দিলে তুমি আমায়!
তোমার চলে যাওয়ার মতো ভয়ানক দণ্ড তো আমি চাইনি
বলেছিলাম, বরখাস্ত করে দাও
তাহলে জনেজনে বলে বেড়াতে পারতুম আমার দণ্ড পাওয়ার কারণ;
এখন আমি লোকেদের কী করে বলবো আমার শাস্তির কথা....!

আজ আর কোন স্বপ্ন বেঁচে নেই
তুমি এখন শুধুই একটা ধোঁয়াটে রাত
সায়াহ্নে ছাদের কোণে তোমার দাঁড়িয়ে থাকা দেখাটা এখন নিছকই বিলাসিতা
আমাকে দেখার জন্য কিংবা আমাকে তোমার উপস্থিতি জানান দেওয়ার জন্য বৃথাই চলাচল,
এসবের আর মোটেই প্রয়োজন পড়বে না

তুমি বেঁচে থাক;
যেথায় আমার একটি স্বপ্নের মৃত্যু ঘটেছিল
সেথায় তুমি চিরস্থায়ী হও
ঈশ্বর তোমার জন্য কল্যাণ বয়ে আনুক



. সাধারণত্ব


আমি আর কোনদিন উদগ্রীব হবো না,
আমি আর কোনদিন কিছুতেই দুঃখ পাবো না,
আমি আর কোনদিন কারো জন্য অপেক্ষা করবো না,
আমি আর কোনদিন কারো লজ্জার কারণ হবো না
কারণ আমি আমার ডাকনাম হারিয়ে ফেলেছি,
কারণ আমি আমার অতীত হারিয়ে ফেলেছি
আমি নতুন একটা নাম পেয়েছি
আমার নাম সাধারণ



. ঘুম


৫০ বছর ঘুমাইনি
তাই আজ সেই ঘুম ঘুমিয়েছি
১০০ বছর পেরিয়ে গেল আমি ঘুমকে কিনতে পারিনি কোন দিনের বেলা
আজ কিনতে হয়নি ঘুম,
ঘুম নিজেই আমার কাছে ছুটে চলে এসেছে
ঠিক নেশার মতো করে অলস দুপুর ঘুম,
যাত্রাপথে যাত্রীর ঘুম
আমার নতুন নামের সাথে যুক্ত হলো ঘুম
আমি ঘুমকাতুরে নেশাখোর ঘুম



. তবে তাই হোক


তবে তাই হোক
পরাজিত স্বপ্নে তুমি নাই ফিরে আস
আমিও নতুন স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাই
আমার পরাজয় যেন তোমায় না ছোঁয়
আমি আর কষ্টের কবিতা লিখতে চাই না
তুমিও আমাকে ভেবে মিছে কষ্ট পেও না
আমার দুঃখ বিষণ্ণতা তুমি কেন মিছে বয়ে বেড়াচ্ছ?
তোমার চোখ,মাংসপিণ্ড, পেশি,শরীরের হাড়,স্মৃতি সব পুড়ে ছাই হয় হোক
অভিমান বুকে করে তুমি দুঃখ পোষ
তাতে আমি অশ্রুজলে বুক ভাসাবো না
তুমি আর ফিরবে না সে আমি জানি
ঘটা করে প্রাত্যহিক জীবনে এসব বলবার প্রয়োজন নেই
তুমি বরং তোমার বোনকে গিয়ে বল আমাকে তুমি চেনই না
দেখনি কোনদিন, আমাদের সাথে কোনদিন চোখাচোখি হয়নি
তারপর তোমরা দুজন মিলে আমার নিন্দে করো
আমি কিচ্ছু বলবো না,
আর কোনদিন সামনে এসো না
যদি চোখ থেকে জল গড়িয়ে পড়ে তুমি আবার মিছে মায়া দেখাতে পার
তাই সামনে এসো না কোনদিন
আমিও না, তুমিও না
যখন কেউই কারো নই
কারো সুখ দুঃখ কারো নয়
তবে কিসের যোগাযোগ কিসের আলাপন!
তোমার অস্তিত্ব বিলীন হোক
আমার হৃদয় থেকে
আমার অস্তিত্ব বিলীন হোক
তোমার হৃদয় থেকে



. গোধূলি বেলা


গোধূলির অলস বেলা সূর্য ডোবার ক্ষণে-
তোমাকেই মনে পড়ে প্রিয় ক্ষণেক্ষণে
মনে পড়ে গলির মাঝে দাঁড়িয়ে তোমার শব্দ শোনা
মনে পড়ে আমাকে শুনিয়ে তোমার মৃদু স্বরাগম



. যখন সন্ধ্যা নামে


যখন সন্ধ্যা নামে
উদাস তুমি মুখ লুকিয়ে-
কলা পাতার বন পাশে
হিমশীত বয়ে অসাড় প্রাণ এক
মুখ তুলে আকাশ পানে
ঘোমটাপরা বধুর বেশে
কান্নার জলে চোখ ভিজিয়ে
একা একা অভিমান বুকে ধরে
ছাদ রেলিং হাত রেখে
তুমি কোন প্রেয়সীর কথা ভাব?
অসীম নীলে তুমি কি তবে আমাকেই খোঁজ?
আমার মত সাজ পোশাকে
আমার মত দাঁড়িয়ে থেকে
আমার মত মলিন বেশে
চুপিচুপি ভালবেসে
দুঃখটাকে সঙ্গী করে
তুমি আমাকেই খোঁজ প্রিয়
এবার অন্তত স্বীকার কর




. বিজ্ঞাপনের জমিনে


যদি কাকের আরাধনাই করবে-
তবে
সবুজ বনে বিজ্ঞাপনের মেলায়
কোকিল কেন ডাকবে!
যদি নগ্ন পায়ে ভোরের আলো ছোঁবে -
তবে
জানালা খুলে কেন ঘুমিয়ে?

জেগে ওঠ,দোর খোল

বিশুদ্ধ বায়ু
তোমাকে যদি দেয় জাগিয়ে -
তবে
কৃষ্ণচূড়া সেখানেই পাবে

আর অপেক্ষা নয়-
দুহাত মেলে বাহুডোরে বেধে নাও রোদ
তোমার সবুজ জমিনে
আমিতো কত আগেই তোমাকে নিয়েছি আমার ভেতরে
যেখানে তোমার আমার স্বপ্নগুলো বোনা আছে
সংকেত হয়ে
যদি কল্পনা আর সংকেতময় জীবন যায় বয়ে
তবে
জেনে রেখো -
আঁধারেই  তোমার আমার জীবন যাবে কেটে
চাইলেই তুমি আলোতে যেতে পার বটে




. পালাবদল


বয়স্ক পাতাগুলোর মৃত্যু হলে নতুন পাতারা গজিয়ে ওঠে;
কচি পাতারা সোনা রোদে ঝকঝক করে
হলুদ ফুলগুলো মাঠকে করে তোলে শস্যের বাগান;
বাতাসে ভেসে বেড়ানো আম্র-মুকুলের ঘ্রাণ
পাগল করে টেনে আনে ভোমরাদের
গুন-গুন গুন গানে সুরমন্ত্র পাঠ করে
কীটপতঙ্গের দল
পালাবদল করে
মরা পৃথিবী জেগে ওঠে
নবজাগরণের আহবান নিয়ে আসে কালো রঙের কোকিল;
সোনার কাঠি ছুঁইয়ে দেয় ঝলমলে পৃথিবীর সোনালি রোদ

No comments

Powered by Blogger.